বানিয়াচংয়ে মায়ের পেট থেকে সন্তানের মরদেহ বের করা হলো কেটে কেটে

  • আপডেট টাইম : November 06 2021, 12:18
  • 21 বার পঠিত

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি : হবিগঞ্জের বানিয়াচঙ্গ উপজেলায় স্বামীর নির্যাতনে স্ত্রীর গর্ভের সন্তান মারা গেছে। মায়ের পেট থেকে নিষ্প্রাণ সন্তানের দেহ বের করা হয়েছে কেটে টুকরো টুকরো করে। একটি বেসরকারি হাসপাতালে এই দৃশ্য মোবাইল ফোনে ধারণ করতে গিয়ে নির্যাতিতা আমাতুন নূরের স্বজনরা হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করা হয়েছে।
আমাতুন নূরের বড়ভাই লাখাই উপজেলার সিংহগ্রামের তাওহিদুল ইসলাম অভিযোগ করেছেন, দীর্ঘদিন ধরে ভগ্নিপতি বানিয়াচং উপজেলার প্রথমরেখ গ্রামের মাওলানা জামাল উদ্দিন তার বোনের কাছে একটি মোটরসাইকেল দাবি করছিলেন; কিন্তু স্ত্রী বাপের বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে দিতে রাজি না হওয়ায় শুক্রবার সকালে স্বামী তাকে বেধড়ক মারপিট করে।
নির্যাতনের একপর্যায়ে ৫ মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা স্ত্রী পেটে তীব্র ব্যথা অনুভব করলে তাকে হবিগঞ্জ শহরের বাসস্ট্যান্ড এলাকার দি জাপান বাংলাদেশ হাসপাতালে নিয়ে যান মাওলানা জামাল উদ্দিন। সেখানে আমাতুন নূরের গর্ভের অপরিপক্ষ সন্তানকে কেটে টুকরো টুকরো করে বের করা হয়।
এ দৃশ্য আমাতুন নূরের ভাই মাওলানা তাওহিদুল ইসলাম ভিডিওতে করতে গেলে এই বেসরকারি হাসপাতালের ডাক্তার ও নার্সসহ মালিকপক্ষের লোকজন তার হাত থেকে মোবাইল ফোন কেড়ে নিয়ে তাকে মারপিট করেন। এ সময় তাকে বাঁচাতে তার মামা আব্দুল হান্নান এগিয়ে এলে তার উপরও হামলা চালানো হয়। দুজনকে করানো হয় কান ধরে উঠবস। খবর পেয়ে স্বজনরা তাদের উদ্ধার করে হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে চিকিৎসা করান। মুমূর্ষু অবস্থায় আমাতুন নূরকেও একই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
মাওলানা তাওহিদুল ইসলাম এ ঘটনার বিচার দাবি করেছেন।