ভাল কাজে যেমনি পুরস্কার মিলবে তেমনি খারাপ কাজে ভোগ করতে হবে শাস্তি

  • আপডেট টাইম : November 10 2021, 18:27
  • 20 বার পঠিত
ভাল কাজে যেমনি পুরস্কার মিলবে তেমনি খারাপ কাজে ভোগ করতে হবে শাস্তি

সিলেট মহানগর পুলিশ (এসএমপি) কমিশনার মো নিশারুল আরিফ বলেছেন, ভাল কাজের জন্যে যেমনি পুরস্কার মিলবে তেমনি কোন পুলিশ সদস্য খারাপ কাজ করলে তাকে অবশ্যই শাস্তি ভোগ করতে হবে।
বুধবার এসএমপির নভেম্বর মাসের কল্যাণ সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।
এসএমপি কমিশনার আইজিপি নির্দেশিত পুলিশিং, পুলিশের ইমেজ, সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার সংক্রান্ত নির্দেশনাবলী, শৃঙ্খলা ও ড্রেসকোড বজায় রেখে পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব সম্পর্কে দিকনির্দেশনা দেন।
পুলিশ কমিশনার গত মাসের পুলিশি কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে সকলকে ধন্যবাদ জানান।
এসএমপি পুলিশ লাইন্সের ড্রিল শেডে অনুষ্ঠিত এই সভায় উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন) পরিতোষ ঘোষ, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অবস) মো শফিকুল ইসলাম, উপ পুলিশ কমিশনার (সদর) মো কামরুল আমিন, উপ পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) ফয়সল মাহমুদ, উপ পুলিশ কমিশনার (ডিবি) তোফায়েল আহমেদ ও উপ পুলিশ কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ পিপিএম সহ সকল অতি উপ পুলিশ কমিশনার, সহকারী পুলিশ কমিশনার, সকল থানার অফিসার ইনচার্জ, আর আই পুলিশ লাইন্স ও বিভিন্ন পদমর্যাদার কর্মকর্তাগণ।
অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার এসএমপির বার্ষিক ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ করেন।
পরে এসএমপি সদর দফতর সম্মেলন কক্ষে পুলিশ কমিশনারের সভাপতিত্বে নভেম্বর মাসের অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (সদর) পরিতোষ ঘোষ, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম এন্ড অবস) মো শফিকুল ইসলাম ও র‌্যাব-৯ অধিনায়ক লে কর্নেল আবু মুসা মো শরীফুল ইসলাম এএসসি, পিএসসি সহ সংশ্লিষ্ট অন্য কর্মকর্তাগণ।
সভায় সকল থানার অফিসার ইনচার্জ তাদের থানা এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি তুলে ধরেন।
পুলিশ কমিশনার তদন্তাধীন মামলাসমূহ দ্রুত নিষ্পত্তি ও বিট পুলিশিং কার্যক্রমকে আরো বেগবান করতে অফিসার ইনচার্জদের নির্দেশ দেন।
তিনি মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি অব্যাহত রাখার উপর গুরুত্ব আরোপ করেন।
সভায় মূলতবী মামলাসমূহের দ্রুত নিষ্পত্তি, ওয়ারেন্ট তামিল, রেজিস্ট্রার-পত্র হালনাগাদ রাখা, আইনশৃঙ্খলা প্রয়োগ ও মামলা তদন্তে বিজ্ঞ আদালত ও অন্যান্য পুলিশ ইউনিটের সঙ্গে সার্বিক সমন্বয় রাখা, ট্রাফিক বিভাগের যথাযথভাবে মোটরযান আইনে ব্যবস্থা নেওয়াসহ গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে পর্যালোচনা করা হয়।
সভায় বিগত মাসে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তারা হলেন, উপ পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) মোহাম্মদ সোহেল রেজা পিপিএম, অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিশনার সালেহ উদ্দিন আহমেদ (ফোর্স, সদর ও প্রশাসন ), সহকারী পুলিশ কমিশনার মো মাঈন উদ্দিন (এসি, দক্ষিণ সুরমা থানা), সহকারী পুলিশ কমিশনার মো সামছুদ্দীন ভূঁইয়া (ফোর্স, সদর ও প্রশাসন), অফিসার ইনচার্জ মো কামাল হাসান তালুকদার (দক্ষিণ সুরমা থানা), ইন্সপেক্টর সুমন কুমার চৌধুরী (তদন্ত, দক্ষিণ সুরমা থানা), ইন্সপেক্টর সঞ্জিত চন্দ্র দাস (ডিবি), ইন্সপেক্টর আল আমিন (ডিসিপ্লিন), ইন্সপেক্টর প্রদীপ কুমার সাহা (প্রসিকিউশন), ইন্সপেক্টর মো হুমায়ুন কবির চৌধুরী (সিটিএসবি), টিআই মো কামাল হোসেন (ট্রাফিক বিভাগ), এসআই স্নেহাশীষ পৈত (দক্ষিণ সুরমা থানা), এসআই শামীম উদ্দিন (ডিবি), এসআই সুদীপ্ত শেখর ভট্টাচার্য (প্রসিকিউশন), এসআই মো শহীদুল হক (রেশন স্টোর), সার্জেন্ট মোস্তাফিজুর রহমান (ট্রাফিক বিভাগ), এসআই মো আফজাল হোসেন (সিটিএসবি), এএসআই আপন মিয়া (দক্ষিণ সুরমা থানা), এএসআই মো জহিরুল ইসলাম (কেন্দ্রীয় রিজার্ভ), এটিএসআই বিপুল চন্দ্র দাস (ট্রাফিক বিভাগ), এএসআই মোহাম্মদ জামান ভূঁইয়া (সিটিএসবি), ড্রাইভার কং/৫৯০ নির্মল দেবনাথ এবং উত্তম কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ নায়েক/১৮৬৪ মো মেহেদী হাসান (গোপনীয়-১ শাখা, সদর ও প্রশাসন)।